বাদ পড়ছেন আফ্রিদি, আকমল আর শেহজাদ

Pakistan-team-bg20160502193745স্পোর্টস ডেস্ক :: আসন্ন ইংল্যান্ড সফরের প্রাথমিক দল থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন পাকিস্তানের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান উমর আকমল এবং ওপেনার আহমেদ শেহজাদ। এছাড়া, টি-টোয়েন্টি দল থেকেও ছিটকে যেতে পারেন দেশটির সিনিয়র অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি।

সোমবার (০২ মে) এমনটি জানিয়েছেন পাকিস্তানের নবনিযুক্ত প্রধান নির্বাচক ইনজামাম উল হক।

এশিয়া কাপের পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও ব্যর্থ ছিল পাকিস্তান। দেশে ফিরে বোর্ডের কাছে ব্যর্থতার কারণ উল্লেখ করে রিপোর্ট করেন সে সময়কার কোচ ওয়াকার ইউনুস ও দলের ম্যানেজার ইন্তিখাব আলম। তাদের রিপোর্টে ছিল বিশ্বকাপ চলাকালীন শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন ওপেনার আহমেদ শেহজাদ ও উমর আকমল। এছাড়া এশিয়া কাপের আসর ও বিশ্বমঞ্চের আসরে আফ্রিদি সিরিয়াস ছিলেন না, টিম মিটিংয়েও অনুপস্থিত থাকতেন। শুধু তাই নয়, দলের অনুশীলনেও সব সময় থাকতেন না আফ্রিদি।

রিপোর্টে পরামর্শ দেওয়া হয়, আফ্রিদি, উমর আকমল ও শেহজাদ দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হলেও পাকিস্তান জাতীয় দল থেকে তাদেরকে দূরে রাখা দরকার।

ইনজামাম সেই রিপোর্টকে পুরোপুরি আমলে না নিলেও সদ্য শেষ হওয়া পাকিস্তানের ওয়ানডে কাপের পারফরমেন্সের উপর ভিত্তি করে ক্রিকেটারদের নির্বাচন করেছেন। একটি খসরা তালিকাও প্রস্তুত করেছেন তিনি। বোর্ডের প্রেসিডেন্ট শাহরিয়ার খানের কাছে দেওয়া সম্ভাব্য ৩৫ জনের প্রাথমিক এই তালিকায় নেই আহমেদ শেহজাদ, উমর আকমল ও টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব থেকে বিদায় নেওয়া আফ্রিদির নাম।

এ প্রসঙ্গে ইনজামাম জানান, পূর্বের শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের জন্য বিভিন্ন সময় শেহজাদ ও আকমলকে তিরস্কৃত করা হয়। তাদের বর্তমান পারফরমেন্সও আস্থাজনক নয়। তাই আমি চাই আসন্ন ইংল্যান্ড সফরের জন্য আমাদের যে অনুশীলন ক্যাম্প চলবে সেখানে তাদের না রাখতে। টি-টোয়েন্টির জন্য ক্যাম্পেও আফ্রিদিকে না রাখার পরামর্শ দিয়েছি। এতে সে লম্বা সময় বিশ্রাম পাবে। তার পুরোনো ফর্মে ফেরার জন্য এ সময় সে আরও ভালোভাবে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে।

এর আগে পাকিস্তানের আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার মোহাম্মদ হাফিজ একাধিকবার নিজের চোটের কথা লুকিয়ে ফিটনেস টেস্ট উতরে গিয়েছিলেন। পরে তা আর গোপন থাকেনি। হাফিজ প্রসঙ্গে ইনজামাম জানান, হাফিজকে তালিকায় রাখা হলেও তার ফিটনেসের উপর নির্ভর করবে সে ক্যাম্পে অংশ নিতে পারবে কি না।

ইনজামাম আরও যোগ করেন, আগে আমাকে নির্বাচক কমিটির স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে। বোর্ড থেকে আমরা গাইডলাইন পেয়েছি। কিন্তু, আমাদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে সবাইকে মেনে নিতে অনুরোধ করছি। কে দলে আসবে আর কে দল থেকে বাদ যাবে-তা ঠিক করার মূল দায়িত্ব নির্বাচকদের।

ইংল্যান্ড সফরে পাকিস্তান চারটি টেস্ট, পাঁচটি ওয়ানডে আর একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*