বাংলাদেশের র‌্যাংকিং কতো?

bangladeshস্পোর্টস ডেস্ক :
দুবাইয়ে আইসিসি সভা থেকে ফিরে সোমবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন সংবাদমাধ্যমকে জানান, ক্রিকেটের ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে পাঁচে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। যদিও আইসিসির পক্ষ থেকে এখনই আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

কিন্তু তার এ সংবাদের পরই শোরগোল পড়ে যায় টাইগার ক্রিকেটপাড়ায়। তবে এ ব্যাপারে সংবাদকর্মীদের তরফ থেকে আইসিসির কাছে জানতে চাওয়া হলে শোনা গেল ভিন্ন কিছু।

আইসিসির প্রধান মিডিয়া কর্মকর্তা সামিউল হাসান একটি মেইলে বিষয়টির বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেছেন। তাতে দেখা যাচ্ছে, কেবল ২০১৪-১৫ ও ২০১৫-১৬ মৌসুমের সিরিজগুলোর ফল হিসাব করলেই কেবল বাংলাদেশ ৠাংকিংয়ে ৫ নম্বরে থাকে। কিন্তু ওয়ানডে র‌্যাংকিং হিসাব করা হয় তিন বছর মেয়াদী চক্রে।

এই মুহূর্তে ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৫-১৬ মেয়াদের চক্র চলছে। এই পুরো মেয়াদের পরিসংখ্যান হিসাব করে যখন আগামী ২ মে নতুন র‌্যাংকিং প্রকাশ করা হবে, সেখানে তাই বাংলাদেশ ৫ নয়, থাকবে ৭ নম্বরেই। সেটা এ কারণে হবে যে, ২০১৩-১৪ মৌসুমে পরবর্তী দুই মৌসুমের তুলনায় সাফল্যমণ্ডিত ছিল না।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা আট দল সরাসরি সুযোগ পাবে ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলার। স্বাগতিক ইংল্যান্ড যদি শীর্ষ আটের বাইরে থাকে, সেক্ষেত্রে সুযোগ পাবে ইংল্যান্ড ও শীর্ষ সাত দল। তখন বিবেচনায় আসবে ২০১৪-১৫, ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ মৌসুম। বাদ পড়ে যাবে ২০১৩-১৪।

আবার ওই র‌্যাংকিংয়ের হিসাব করা হবে ২০১৬-১৭ মৌসুমের পারফরম্যান্সের শতভাগ পরিসংখ্যানের সঙ্গে ২০১৪-১৫ ও ২০১৫-১৬ মৌসুমের ৫০ ভাগ পরিসংখ্যান বিবেচনায় নিয়ে।

এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে, বাংলাদেশ আগামী ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে চাইলে তাদের এখনকার ৭ নম্বর অবস্থান ধরে রাখতে হবে। সেক্ষেত্রে আগামী ১৭ মাসের পারফরম্যান্সে সাফল্য-ব্যর্থতার ওপর নির্ভর করছে সবকিছু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*