আল্লাহর নৈকট্যপ্রাপ্ত বান্দারা দুনিয়া থেকে কবরের জিন্দেগীকে বেশি পছন্দ করেন ——আল্লামা এম এ মান্নান

444 copyবাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান গবেষক আল্লামা এম এ মান্নান বলেন, বিশ্বব্যাপী ধর্মীয় উগ্রবাদকে উসকে দিয়ে মুসলিম নির্যাতন, নিপীড়ন ও নিধন তীব্র গতিতে এগিয়ে চলছে। একশ্রেণীর স্বার্থবাদী মুসলিমরা অর্থের বিনিময়ে এই গর্হিত কাজে নিজেদেরকে  সম্পৃক্ত করে মুসলমান জাতিকে হেয় প্রতিপন্ন করছে। ধর্মীয় চেতনাবোধ যত বেশি মানুষের অন্তরে জাগরিত থাকবে সমাজ ও রাষ্ট্রের শান্তি শৃংখলা তত বেশি টেকসই হবে। আজকের দিনে বিশ্বব্যাপী মুসলিম নির্যাতন ও নিধনের পেছনে একটি মাত্র কারণ সেটা হল মুসলমানরা দ্বীন ধর্ম ছেড়ে ইহুদি-নাসারাদের গোলামিতে লিপ্ত। তিনি সর্বক্ষেত্রে কোরআন সুন্নাহর শ্বাশ্বত নীতি ও আদর্শ অনুশীলন করে সংঘাতপূর্ণ
সমাজ থেকে জাতিকে মুক্ত করতে আউলিয়ায়ে কিরামের সান্নিধ্যে আশার আহবান জানান। তিনি ৮ এপ্রিল জুমাবার কর্ণফুলী থানার দক্ষিণ শিকলবাহা হযরত পাঁচ আউলিয়া (রহ.) বার্ষিক ওরশ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত মন্তব্য করেন। মাহফিলে প্রধান বক্তার বক্তব্যে আল্লামা আবুল কাশেম নূরী বলেন, রাজনীতিতে অযোগ্য ব্যক্তিদের হাতে নেতৃত্ব আসার কারণে দেশে অরাজকতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষের মধ্যে যতক্ষণ পর্যন্ত আত্ম সচেতনবোধ ফিরে না আসবে ততক্ষণ পর্যন্ত সমাজের মানুষদের গোলামি থেকে ফেরানো যাবে না। তিনি কোরআন সুন্নাহর পক্ষে নিজেদের স্বীয় জীবন পরিচালনার মাধ্যমে আদর্শিক সমাজ উপহার দেওয়ার জন্য সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। আল্লাহর নৈকট্যপ্রাপ্ত বান্দারা দুনিয়া থেকে কবরের জিন্দেগীকে বেশি পছন্দ করে। আল্লাহর অলিরা মাহন প্রভুর পরিপূর্ণ নৈকট্য অর্জন করার কারণে জাতি নির্দিষ্ট সময়ে তাদের পবিত্র ওরশ শরীফ উদ্যাপনের মাধ্যমে তাদেরকে স্মরণ করেন। বিশিষ্ট আইনজীবী এড. সৈয়দ জি এম হারুনের সভাপতিত্বে এবং মাওলানা মোজাহেরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মাহফিলে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওরশ উদ্যাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সমাজসেবক মাওলানা সৈয়দ ফোরকান  আল হামিদী। তাকরির পেশ করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ইসলামী বক্তা আল্লামা আবু সুফিয়ান খান আবেদী আলকাদেরী, তরুণ বক্তা শায়ের মাওলানা আবদুল আজিজ রজভী। বিশেষ অতিথিবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা এম এ মাবুদ, আলহাজ মাওলানা ইব্রাহিম ফয়েজি , আলহাজ মাওলানা মুহাম্মদ ইসমাইল রেজভী, ইসলামী ফ্রন্ট দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন, সৈয়দ মুহাম্মদ শওকত আলী, আলহাজ মুহাম্মদ মুছা, আলহাজ এস এম সালেহ, এড. মুহাম্মদ ওসমান, মাওলানা ইউনুফ অহিদি, মাওলানা আবু নঈম, মাওলানা মহিউদ্দিন হামিদি, সৈয়দ মুহাম্মদ আলী, সৈয়দ মুহাম্মদ আইয়ুব আলী, আবদুল কাদের রজভী, মুহাম্মদ মিয়া জুনাইদ প্রমুখ। পরিশেষে সালাতু সালাম বিশ্বশান্তি, অগ্রগতি ও মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনায় বিশেষ মুনাজাতের মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*