নাব্যতা হারাচ্ছে কহলখালী খাল : পানি সংকটে চাষীরা

চকরিয়া প্রতিনিধি :: বাজারের ময়লা আর্বজনার ফেলে ভরাটের হওয়ায় খননের চার বছের মাথায় পুণঃরায় নাব্যতা হারাতে বসেছে কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলা সদরে কহলখালী খাল। যার ফলে ২শত একর বুরো চাষীরা শুস্ক মৌসুমে পানি সংকটের বিঘ্নতায় পড়েছে।এতে শুস্ক মৌসুমে চাষের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে বরো চাষ।এমন অভিযোগ তুলে কেটে খাওয়া প্রান্তিক চাষীরা। সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, পেকুয়া সদর চৌমুহনী সহ বাজারের সমস্ত ময়লা,আর্বজনা ফেলে প্রায় ৩ কিলোমিটার মত কহলখালী খালটি ভরাট হতে চলছে।এছাড়াও চৌমুহনী থেকে বাজার পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার খালটি ভরাটে কারণে দখল করে ফেলে অসাধু কিছু ব্যক্তি।ফলে খালে দুই পাশে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন দোকানপাট ও প্রাইভেট হাসপাতাল।যার ফলে শত বছরের খালটি সংকুচিত হওয়ায় শুস্ক মৌসুমে পানি পাচ্ছেনা বুরো চাষীরা।এতে খাদ্য উপদানে ব্যাপক ক্ষতি সাধন হবে।অপরদিকে নাব্যতা হারাচ্ছে খালটি। উপজেলা অফিস সূত্রে জানা যায়, বিগত ২০১৬ সনের জানুয়ারী মাসে ১০ লক্ষ টাকা খরচ করে ২০/৩০ ফুট গভী করে খালটি খনন করেছিল,তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মারুফুর রশিদ খান।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাঈকা শাহাদাৎ আমার বার্তা বলেন, দখল-দূষন হয়ে থাকলে অবশ্যই আমি দ্রুত এর ব্যবস্হা নিব।এতে কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*