কক্সবাজারে কেয়ার বাংলাদেশের নতুন প্রকল্প

কক্সবাজার প্র্রতিনিধি:

কক্সবাজারে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জন্য প্রজনন স্বাস্থ্য ও অধিকার জোরদার করা এবং জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা রোধে সেবা প্রদান- শীর্ষক নতুন একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে কেয়ার বাংলাদেশ। কক্সবাজার সদর, চকোরিয়া, পেকুয়া ও মাহেশখালি উপজেলার মোট ১ লাখ ১৪ হাজার ৫৩১ জনগণ এ প্রকল্পটির সেবার আওতাভুক্ত হবে। বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজারের স্থানীয় একটি হোটেলের সন্মেলন কক্ষে এ উপলক্ষে আয়োজিত প্রকল্পটির প্রারম্ভিক সভায় এসব তথ্য জানানো হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- কক্সবাজার সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মাদ আব্দুল মতিন এবং হেড অফ এইড ডেভেলপমেন্ট করপোরেশন, হাই কমিশন অফ কানাডা পেড্রা মুন মরিস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কেয়ার বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর জিয়া চৌধুরী। সভায় জানানো হয়, বাংলাদেশ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন, আইন ও বিচার ব্যবস্থা, স্বাস্থ্যসেবা সমূহ এবং সমাজসেবা অধিদপ্তরের সঙ্গে সমন্বয় এর মাধ্যমে কেয়ার বাংলাদেশ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রজনন স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং নারী ও কিশোরীদের অধিকার উন্নয়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য হল- প্রজনন স্বাস্থ্য সমুন্নত করা ও উচ্চমান বৃদ্ধি এবং জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতার শিকার নারীদের সেবা গ্রহণে প্রবেশাধিকার বাড়ানো। এই প্রকল্পটি ছাড়াও সম্প্রতি কেয়ার বাংলাদেশ “প্রেরণা” নামক আরও একটি প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করেছে রামু, মহেশখালি ও কক্সবাজার সদর উপজেলায়। এ প্রকল্পের আওতায় মাল্টিপারপাস সাইক্লোন সেন্টার স্থাপন এবং ২০০ এর অধিক ঝুঁকিপূর্ণ বাড়িঘর পুনঃনির্মাণ করা হবে। যা দুর্যোগের ঝুঁকি হ্রাসে সহায়তা করবে। এছাড়াও কেয়ার বাংলাদেশ কক্সবাজার সদর, রামু, চকোরিয়া, উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে কাজ করছে যা কিনা স্থানীয় জনগণের অসংক্রামক ব্যাধি নিরাময়ে সেবাগ্রহণে সহায়তা করবে। এতে ৯ হাজারেরও বেশি জনগণ সরাসরি কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবা সমূহের মাধ্যমে উপকৃত হবে। কেয়ার বাংলাদেশ- সেভ দ্যা চিলড্রেন এবং কনসার্রন্ড ওমেন ফর ফ্যামিলি ডেভেলপমেন্টকে সঙ্গে নিয়ে যৌথভাবে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে।
এছাড়াও প্রকল্পটিতে কারিগরি সহায়তা দেবে জাতীসংঘের জনসংখ্যা তহবিল ইউএনএফপি, এবং অর্থায়নে সহযোগিতা করছে গ্লোবাল এফের্য়াস কানাডা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*